http://igeneration.com.bd/wp-content/uploads/2021/05/the-hand-of-the-terrible-black-fungus-in-West-Bengal-the-first-woman-to-di.jpg

ভয়ংকর ব্ল্যাক ফাঙ্গাসের থাবা পশ্চিমবঙ্গে, প্রথম নারীর মৃত্যু

সারা বিশ্ব

করোনাভাইরাস সংক্রমণের দ্বিতীয় ঢেউয়ে মৃত্যুপুরীতে পরিণত ভারত। করোনার এই ধাক্কা সামাল দিতেই যখন হিমশিম খাচ্ছে দেশটির তখন সেখানে ছড়িয়ে পড়েছে ব্ল্যাক ফাঙ্গাস। দিন দিন ভয়ঙ্কর হয়ে উঠেছে এই রোগটি। ইতিমধ্যে একে অতিমারি ঘোষণা দিয়েছে ভারত।  ভয়ংকর ব্ল্যাক ফাঙ্গাসের থাবা পশ্চিমবঙ্গে, প্রথম নারীর মৃত্যু।

এবার ছত্রাক সংক্রমিত এ ভাইরাসে আঘাত হেনেছে ভারতের পশ্চিমবঙ্গেও। জানা গেছে, কলকাতায় ব্ল্যাক ফাঙ্গাসে আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন ৩২ বছরের এক নারী। কলকাতার গণমাধ্যম আনন্দবাজার পত্রিকা জানিয়েছে, ওই নারীর নাম শম্পা চক্রবর্তী। তিনি রাজ্যের হরিদেবপুরের বাসিন্দা।  গত বৃহস্পতিবার মধ্যরাতে কলকাতার শম্ভুনাথ পণ্ডিত হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়।

হাসপাতালে করোনা চিকিৎসা চলছিল তার।  পাশাপাশি ব্ল্যাক ফাঙ্গাস বা মিউকরমাইকোসিসের চিকিৎসাও চলছিল তার।  ডায়াবেটিসেও ভুগছিলেন শম্পা।  এতো সব জটিলতায় শেষরক্ষা হয়নি তার।

শম্ভুনাথ পণ্ডিত হাসপাতালের চিকিৎসকরা জানান, প্রথমে করোনার উপসর্গ নিয়ে হাসপাতালে ভর্তি হন শম্পা।  নমুনা টেস্টে তার কোভিড-১৯ পজিটিভ ধরা পড়ে।  করোনার পাশাপাশি ব্ল্যাক ফাঙ্গাসেও আক্রান্ত হন শম্পা। এ জন্য ব্ল্যাক ফাঙ্গাসের ওষুধ ‘অ্যাম্ফোটিরিসিন-বি’ দেয়া হয়েছিল তাকে। অক্সিজেনও দেওয়া হচ্ছিল তাকে।

শম্পার স্বামী রাজু চক্রবর্তী সেলসম্যানের কাজ করেন।  এ দম্পতির ঘরে ১৩ বছরের একটি মেয়েও রয়েছে। স্ত্রীয় মৃত্যু ভেঙে পড়ছেন রাজু।

Tagged