http://igeneration.com.bd/wp-content/uploads/2021/04/ব্লগে-এডসেন্স-পেতে-হলে-পুনরায়-সংযোজন-করতে-হবে-যে-সকল-বিষয়.jpg

ব্লগে এডসেন্স পেতে হলে পুনরায় সংযোজন করতে হবে যে সকল বিষয়

ওয়েব ডেভেলপিং

কিছুদিন পূর্বেও ব্লগ সাইটে এডসেন্স পাওয়াটা খুব সহজ ব্যাপার ছিল ।তবে দিন যত যাচ্ছে এডসেন্স যেন তাদের পলিসি আরো কঠিন করছে। ব্লগে এডসেন্স পেতে হলে পুনরায় সংযোজন করতে হবে যে সকল বিষয়।

যদিওবা অফিশিয়ালি এডসেন্স জানায় প্রোগ্রামটি চালু করতে হলে কেবলমাত্র একটি কোয়ালিটি সম্পন্ন ওয়েবসাইট প্রয়োজন।তবে সেটি ঠিক কতটুকু কোয়ালিটি সম্পন্ন হবে এবং ওয়েবসাইটের কোয়ালিটি বৃদ্ধি করার জন্য কি কি পদক্ষেপ গ্রহণ করতে হবে তা সচরাচর এডসেন্স বলে দেয় না। পূর্বে কেবলমাত্র প্রয়োজন ছিল ইউনিক কন্টেন্ট এবং ওয়েবসাইট সম্পর্কিত কিছু পেজ সমূহ।

তবে ইউনিক কন্টেন্ট এর সাথে এখন প্রয়োজন আরো অনেক কিছু !

চলুন এক নজরে দেখে নেওয়া যাকঃ
ওয়েবসাইটে পর্যাপ্ত ভিজিটরঃ
একটা সময় ছিল যখন ব্লগ সাইটে অ্যাডসেন্স পাওয়ার জন্য বিন্দুমাত্র ভিজিটরের প্রয়োজন পড়তো না। তবে সাম্প্রতিক সময়ে দেখা যাচ্ছে সবকিছু ঠিকঠাক থাকার পরেও ইউনিক ভিজিটর না আসা পর্যন্ত গুগল এডসেন্স দিতে নারাজ। সে কারণে ব্লগ সাইটে পর্যাপ্ত পরিমাণে ভিজিটর থাকা আবশ্যক। প্রশ্ন হচ্ছে এই ভিজিটরগুলোর সোর্স কি ?

প্রাথমিক অবস্থায় এডসেন্স প্রোগ্রামটি চালু করার জন্য যেকোনো ধরনের থার্ড পার্টি ওয়েবসাইট থেকে ভিজিটর নিয়ে আসলো কোন সমস্যা হবে না ।তবে গুগোল থেকে ভিজিটর নিয়ে আসার সর্বোচ্চ চেষ্টা থাকতে হবে। এজন্য ব্লগের কনটেন্ট গুলো অবশ্যই এসইও ফ্রেন্ডলি হতে হবে।

এসইও ফ্রেন্ডলি আর্টিকেলঃ
কিছুদিন পূর্বেও কেবলমাত্র ইউনিক আর্টিকেল অ্যাডসেন্স পাওয়ার জন্য যথেষ্ট ছিল। তবে সাম্প্রতিক সময়ে কেবল ইউনিক নয় তার সাথে সাথে কনটেন্ট হতে হবে এসইও ফ্রেন্ডলি। থাকতে হবে “কি ওয়ার্ডের” সুবিন্যস। এজন্য যাতে এডসেন্স প্রোগ্রামটি কেবলমাত্র উপযুক্ত ওয়েবসাইট পেতে পারে।

আর্টিকেল গুগলের রেংকঃ
এডসেন্স পেতে হলে নূন্যতম একটি আর্টিকেল গুগলে র‍্যাংক করতে হবে। অর্থাৎ ন্যূনতম একটি আর্টিকেল গুগল সার্চের প্রথম পেজ এ থাকতে হবে। এতে যেমন এডসেন্স অনুমোদন পাবেন। তেমনি আরো বাড়বে এবং একই সাথে আপনার ওয়েবসাইটের পপুলারিটি বৃদ্ধি পাবে ।

প্রিমিয়াম এবং হালকা গড়নের একটি থিমঃ
পূর্বে যেখানে গুগোল যেকোন থিম ব্যবহার করেই অ্যাডসেন্সে অ্যাপ্রভাল দিত সেখানে বর্তমানে গুগোল একটি প্রিমিয়াম এবং হালকা গড়নের থিম ব্যবহার করার পরামর্শ দিয়ে থাকে। যাতে সেটি ইউজার ফ্রেন্ডলি হতে পারে এটি মোটামুটি আবশ্যক বলা চলে।

এখন কথা হচ্ছে গুগল তাদের পরিস্থিতিতে এই ধরনের পরিবর্তন কেন আনছে এবং দিন কেন এত কঠোর হচ্ছে?

মূলত গুগোল চায় যেন তাদের সার্ভিস আরও উন্নত এবং মান সম্পন্ন হয়। এর ফলে যাতে তাদের অ্যাডভারটাইজাররা উপকৃত হতে পারে। গুগোল মূলত টার্গেটেড ভিজিটরদের কাছে তাদের অ্যাডভার্টাইজদের সেবা পৌঁছে দিতে চায়। সে কারণেই গুগল এডসেন্স এতটা কঠোর হচ্ছে । তবে তার পাশাপাশি পাবলিশারদের অর্থাৎ কন্টেন্ট ক্রিয়েটরদের আয় বাড়িয়ে দেওয়ার প্রতিশ্রুতি জানিয়েছে। তবে তার জন্য দরকার মানসম্পন্ন অ্যাডভারটাইজার!

 

Tagged