http://igeneration.com.bd/wp-content/uploads/2021/04/গ্রেনেড-ভেবে-পুলিশে-ফোন-পরে-জানা-গেলো-সেক্স-টয়.jpg

গ্রেনেড ভেবে পুলিশে ফোন, পরে জানা গেলো সেক্স টয়!

ভাইরাল

দেখতে হুবহু হ্যান্ড গ্রেনেডের মতো। তাই গ্রেনেড ভেবে পুলিশে ফোন দেয়া হয়েছিল। ঘটনাস্থলে পৌঁছে তাদের বোমা নিষ্ক্রিয় দল ওই বস্তুটি খতিয়ে দেখে। পরে জানতে পারে যে, এটা একটা সেক্স টয়! এমনই অবাক করা ঘটনা ঘটেছে জার্মানির বাভারিয়া রাজ্যে।

কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, ‍রাজ্যের পাসাউ শহরের কাছে একটি বনে একটি পরিষ্কার প্লাস্টিকের ব্যাগে গ্রেনেডের আকৃতির ওই বস্তুটি পাওয়া যায়। একজন নারী জগার ওই বস্তুটি দেখতে পেয়ে পুলিশে খবর দেন। পরে পার্শ্ববর্তী টিটলিং জেলা থেকে বোমা নিষ্ক্রিয়কারীদের একটি দল ঘটনাস্থলে পাঠানো হয়।

স্থানীয় পুলিশ জানায়, বস্তুটি নাড়াচাড়া করার কিছুক্ষণের মধ্যে বোমা বিশেষজ্ঞরা বুঝতে পারেন যে এটা বোমা নয়। হজেনবার্গ পুলিশ এক বিবৃতিতে জানিয়েছে, ব্যাগে থাকা বস্তুটি সতর্ক পরীক্ষার পর তারা বুঝতে পারেন এটা আসলে একটা রাবার ডামি।

তারা জানায়, ব্যাগে থাকা জিনিসপত্র বের করে পরীক্ষা করা হয়। কিন্তু ব্যাগের ভেতর থেকে লুব্রিক্যান্টের খালি একটি টিউব, দুটি অব্যবহৃত কন্ডম এবং একটি ইউএসবি ক্যাবল পাওয়া যায়। পরে নিজেদের সন্দেহ প্রমাণের জন্য অনলাইনে সার্চ দিয়ে কর্মকর্তারা দেখতে পান যে, গ্রেনেডের আসলে এটা আসলে সেক্স টয়।

পুলিশ জানায়, তারা ওই বস্তুগুলো নিয়ে গেছে। তবে যে জায়গা থেকে বস্তুগুলো পাওয়া গিয়েছিল, সেটা তাদের কাছে অস্বাভাবিক মনে হয়েছিল। উল্লেখ্য, জার্মানিতে প্রায়ই দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের অবিস্ফোরিত গোলাবারুদ পাওয়া যায়। যার কারণে মানুষজনকে সরিয়ে সেগুলো নিষ্ক্রিয় করতে হয়।