Mobile

এন্ড্রয়েড ফোন অতিরিক্ত গরম হওয়ার কারন এবং প্রতিকার !

প্রযুক্তি প্রযুক্তি খবর প্রযুক্তি রিভিউ সফটওয়্যার

এখনকার সর্বাধুনিক স্মার্টফোনগুলোতে ক্রমেই প্রসেসিং শক্তি বেড়েই চলেছে। সেই সঙ্গে বড় ব্যাটারি আর দ্রুতগতির চার্জিং প্রযুক্তিও থাকছে। কিন্তু দেখা যাচ্ছে, কিছু কিছু কারনে কাজের সময় ফোন অতিরিক্ত গরম হয়ে যাচ্ছে। এন্ড্রয়েড ফোনের স্বাভাবিক তাপমাত্রার পরিমান হচ্ছে ৩২ ডিগ্রী ফারেনহাইট থেকে ১০০ ডিগ্রী ফারেনহাইট পর্যন্ত। বেশীরভাগ এন্ড্রয়েড ফোনের একবার ১২০ ডিগ্রী ফারেনহাইট হয়ে গেলেই তাতে সমস্যা দেখা দেয়। যার কারনে গতি শুরুতেই কমতে শূরু করে। কোনভাবে এই তাপমাত্রার উপরে গেলে সেই ফোনটা বেশিদিন টিকবেনা এমনকি চিরতরে বন্ধ হয়ে যেতে পারে। তাই নিচে কিছু নির্দেশনা জেনে নিন।

স্মার্টফোনের কাভার অধিকাংশে ফোনকে গরম করে ফেলে

আমরা অনেকেই স্মারতফোনের জন্য কাভার ব্যবহার করে থাকি কিন্তু এটার মধ্যমে আমাদের ফোন গরম হয়ে যেতে পারে। তাই এই কাভার ব্যবহার না করাই ভালো।

চার্জ দেওয়ার সময় ফোন নরম স্থানে না রাখা

ফোন চার্জে দেওয়ার সময় সেটিকে কোন নরম স্থানে না রেখে একটা শক্ত স্থানে চার্জ দিলে সেটি থেকে সহজে অন্য কোন বস্তু সেখান থেকে তাপ টেনে নিতে পারবে না। তাই শক্ত স্থানে রাখাই ভালো।

সারা রাত চার্জে না লাগিয়ে না রাখা

আমরা অনেক সময় ফোন চার্জে লাগিয়ে ঘুমিয়ে যাই, আর এদিকে আমাদের ফোন সারারাত চার্জ হতেই থাকে এতেও ফোন অনেকাংশে গরম হয়ে যায়।

ফোনের নিদিষ্ট চার্জার ব্যবহার করা

আসল নির্মাতার তৈরি নয় এমন কিছু চার্জার ও ব্যাটারি ব্যবহারে ফোন গরম হয়। তাই ফোনে চার্জ দেওয়ার সময় আসল চার্জার ব্যবহার করা হচ্ছে কিনা তা দেখে নিতে ভুলবেন না।

দুর্বল নেটওয়ার্ক

আপনার ফোনের নেটওয়ার্ক যদি যায় আর আসে মানে উঠে আর নামে তাহলে আপনার ফোনটি গরম হওয়াটাই স্বাভাবিক।

এসব নিয়ম মেনে ফোন ব্যবহারে ফোন অনেকাংশে ঠিক থাকবে। কেননা ফোন গরম হয়ে গেলে তা অনেক ক্ষতির কারন হয়ে দাঁড়ায়। এমনকি ফোনটি পুরে যেতে পারে।

ব্যাটারির বেশি গরম হয়েছে কিনা পরীক্ষা করবেন

এন্ড্রয়েড ফোনে তাপমাত্রা চেক করার জন্য একটি সিস্টেম দেওয়া আছে। সেটি ব্যবহার করে আমরা ফোনের তাপমাত্রা চেক করে থাকি। এগুলোর মধ্যে সবচেয়ে ভাল যে এপস সেটার নাম হচ্ছে CPU Temperature । আরও জানতে পারবেন কি কারনে আপনার ফোনটি গরম হল। তার সব তথ্য জানাবে এই সফটওয়্যার টি।

স্মার্টফোন গরম হওয়া থেকে রক্ষা করবেন যেভাবে

  • গুধুমাত্র ব্রাউজিং এর সময় ডাটা বা ওয়াইফাই সংযোগ করুন।
  • নিয়মিত সফটওয়্যার আপডেট করুন।
  • অপ্রয়োজনীয় বার্তা ডিলিট করুন।
  • র‍্যাম ও ক্যাশ ক্লিন রাখতে হবে।
  • এক সাথে একাধিক অ্যাপ ব্যবহার না করা।
  • কোন অ্যাপস ব্যাকগ্রাউন্ডে বেশি জায়গা নিয়ে আছে তা বন্ধ করে দিন।
  • এনিমেশন ওয়ালপেপার কখনই ব্যবহার করবেন না।
  • ব্রাইটনেস কম বা অটো রাখুন।
  • স্মার্টফোনে এমন কভার ব্যবহার থেকে বিরত থাকুন।
  • ভাইরাস আক্রান্ত হয়েছে কিনা তা খেয়াল রাখুন।