http://igeneration.com.bd/wp-content/uploads/2021/04/ভাইরাল-কন্টেন্ট-কিভাবে-তৈরী-করবেন.jpg

ভাইরাল কন্টেন্ট কিভাবে তৈরী করবেন?

প্রযুক্তি

যারা সাধারণত ইউটিউব অথবা ব্লগসাইটে কন্টেন্ট ক্রিয়েন্ট করে থাকেন তাদের একটাই লক্ষ্য থাকে নিজেদের কন্টেন্ট ভাইরাল করা। অর্থাৎ নিজেদের শ্রম দিয়ে তৈরি করা কনটেন্টকে ইউটিউব অথবা গুগোলে র‍্যাংক করানো । এটি বেশ কষ্টসাধ্য একটি কাজ । আপনার প্ল্যাটফর্মের যদি একটিও কনটেন্ট ভাইরাল করতে সক্ষম না হন তাহলে সে ক্ষেত্রে হাজার হাজার কনটেন্ট আপলোড করেও কোন লাভ হবে না । অনেক সময় একটি কনটেন্ট ভাইরাল হলে তা আপনার প্ল্যাটফর্মের মোড় ঘুরিয়ে দেয় । কিন্তু প্রশ্ন হলো কিভাবে কন্টেন্ট ভাইরাল করবো ?

চলুন বিস্তারিত আলোচনা করা যাক!
কনটেন্ট ভাইরাল করা অনেকটা বোলারের উইকেট পাওয়ার মত। বোলার প্রতিনিয়ত ডেলিভারি দিতে থাকে এবং একপর্যায়ে যদি কোন বল ব্যাটসম্যানকে ড্রেসিংরুমে ফেরাতে পারে তাহলে যেমন খেলার মোড় বদলে যায় একটি কনটেন্ট ভাইরাল হলেও আপনার সে প্ল্যাটফর্মের মোড় ঘুরে যাবে।

একটি কনটেন্ট ভাইরাল করতে হলে প্রথমত দুটি বিষয়ের উপর সবচেয়ে বেশি নজরদারি করতে হবে!

১। ট্রেন্ডিং টপিক
২। ইউনিক টপিক
প্রথমে কথা বলা যাক ট্রেন্দিং টপিক এর ব্যাপারেঃ
সারাবিশ্বে প্রতিনিয়ত কোনো না কোনো বিষয় বা ঘটনা প্রতিনিয়ত ট্রেন্ডলিস্টে অবস্থান করে। এবং বরাবরের মত কিছুদিন যেতে না যেতেই ট্রেন্ড লিস্ট পরিবর্তিত হয়। সুতরাং যখনই কোন বিষয়ে ট্রেনে আসবে ঠিক তখনই আপনি চাইলে সে ট্রেন্ডিং ব্যাপারটি নিয়ে লিখতে পারেন । এটি সবচেয়ে বেশি প্রযোজ্য তাদের জন্যই হবে যারা নিউজ নিশ নিয়ে কাজ করেন । তবে আপনার যদি টেক প্ল্যাটফর্ম হয়ে থাকে তাহলে সেই ক্ষেত্রে প্রতিনিয়ত বিভিন্ন ধরনের আপডেটেড গ্যাজেট এবং টেক নিউজ সম্পর্কে আপনার কনটেন্ট তৈরি করতে পারেন।

এই যেমন প্রতিনিয়ত আমাদের দেশ এবং দেশের বাইরে বিভিন্ন ধরনের ফোন লঞ্চ হচ্ছে। এবং প্রতিটি ফোন লঞ্চ হবার সাথে সাথে টেকপ্রেমীদের ভেতরে আগ্রহের যেন অন্ত থাকে না। সে কারণে যারা নতুন কনটেন্ট ক্রিয়েটর তাদের জন্য এই নিশ নিয়ে কাজ করাটা সবচেয়ে ভালো ।

দ্বিতীয়তঃ যে ব্যাপারটি মাথায় রাখতে হবে সেটি হলো ইউনিক কন্টেন্ট!
আপনি আপনার অডিয়েন্সদের কাছে যত ভালো ইউনিক কন্টেন্ট পরিবেশন করতে পারবেন আপনার চাহিদাও তাদের কাছে ঠিক ততটুকুই বেড়ে যাবে ।সুতরাং যদি ইউনিক কনটেন্ট নিয়ে কাজ করেন তাহলে সেই ক্ষেত্রে ভবিষ্যতে ভালো কিছু করার যথেষ্ট সম্ভাবনা থাকে ।তবে চেষ্টা করুন আপনার ইউনিক কন্টেন্ট যেনো ট্রেন্ড লিস্ট অবস্থান করে বা তার আশপাশে থাকে। সে কারণে কোনো বিষয় যদি হুটহাট ট্রেন্ড লিস্টে চলে আসে অথবা ভাইরাল হয় তাহলে যত দ্রুত সম্ভব সেই বিষয়টি নিয়ে কনটেন্ট তৈরি করতে শুরু করুন। আপনি যত দ্রুত কনটেন্টটি তৈরি করবেন ঠিক ততগুলো তো আপনার কনটেন্ট ভাইরাল হবে ।

কনটেন্ট এর মান বজায় রাখা এটি খুব গুরুত্বপূর্ণ ।কেননা এতে করে আপনার কনটেন্ট যদি ভাইরাল হয় তাহলে সেই ক্ষেত্রে অডিয়েন্স টিকে থাকার যথেষ্ট সম্ভাবনা থাকে। কিন্তু যদি দেখেন কনটেন্ট এর মান খুব একটা উন্নত নয় তাহলে সেই ক্ষেত্রে অডিয়েন্স টিকে থাকার খুব একটা সম্ভাবনা থাকবে না ।একই সাথে রেগুলার কনটেন্ট আপলোড দিতে হবে ।