http://igeneration.com.bd/wp-content/uploads/2021/04/গেম-খেলতে-গিয়ে-জাগে-কৌতূহল-যার-জেরে-সামলাচ্ছেন-কোটি-টাকার-ব্যবসা.jpg

গেম খেলতে গিয়ে জাগে কৌতূহল, যার জেরে সামলাচ্ছেন কোটি টাকার ব্যবসা

প্রযুক্তি প্রযুক্তি খবর বিজনেস

প্রশিক্ষণ নিতে গেলে যে টাকার প্রয়োজন, তা ব্যয় করা সম্ভব নয়। সাইবার ক্যাফেতে গিয়ে ইন্টারনেট ঘেঁটেই শিখে ফেলেন ওয়েব ডেভলপমেন্টের খুঁটিনাটি। সম্প্রতি ২২ বছরের হুসেন সইফির প্রশংসা করছে সোশাল মিডিয়া। কে এই হুসেন? কোনো তারকা বা ব্যবসায়ী পুঁজিপতি পরিবারের সন্তান নয়।

মধ্যবিত্ত পরিবারেই তার বেড়ে ওঠা। কম্পিউটারে গেম খেলতে পছন্দ করতেন। তার চেয়েও বেশি পছন্দ করতেন, কীভাবে গেম তৈরি হয়?

বয়স তখন ১২, বাড়িতে কম্পিউটার নিয়ে আসে বাবা। কম্পিউটারের জ্ঞান বাড়ানো কম, গেম খেলাই প্রধান কাজ হয়ে ওঠে হুসেনের। এর পাশাপাশি মনে প্রশ্ন জাগে কীভাবে কম্পিউটার গেম তৈরি হয়? সেই উত্তর খুঁজতে খুঁজতেই বড় হয়ে ওয়েব ডেভেলপার হয়ে ওঠেন। শুরু করেন নিজের ব্যবসা। এখন কয়েক কোটি টাকার মালিক সে।

হুসেন স্থির করেন ওয়েব ডেভেলপমেন্ট শিখবেন। কিন্তু বাড়িতে কম্পিউটারে ইন্টারনেট সংযোগ ছিল না। এদিকে প্রশিক্ষণ নিতে গেলে যে টাকার প্রয়োজন, তা ব্যয় করা সম্ভব নয়। সাইবার ক্যাফেতে গিয়ে ইন্টারনেট ঘেঁটেই শিখে ফেলেন ওয়েব ডেভলপমেন্টের খুঁটিনাটি।

এরপর ইউটিউবে চ্যানেল শুরু করেন, যেখানে পোগ্রামিংএর শিক্ষা দেন তিনি। ভোপালের একটি সংস্থা ওয়েবসাইট বানানোর জন্য তার সঙ্গে যোগাযোগ করে। সেখান থেকেই জীবনের মোর ঘোরে হুসেনের। সেই সংস্থা ৫০ হাজার টাকা দেয় তাকে। এরপর টুকটাক ওয়েব ডিজাইন করে মাসে প্রায় ২০ হাজার টাকা রোজগার করা শুরু করে হুসেন।

ভোপালে প্রথম একটি ছোট অফিস খোলে সে। যা ধীরে ধীরে ক্রমশ বড় হয়ে ওঠে।ইতিমধ্যে এডুজিনা, জিংফি, ফাস্ট২এসএমএস-এর মতো দুশোটি সংস্থার হয়ে কাজ করছে হুসেন।নিজের কোম্পানির তাঁদের প্রসার ঘটেছে আমেরিকা, জাপান, দুবাইয়েও। একের পর এক কর্মচারী নিয়োগ করছে এই বাইশের যুবক।