ইহুদি উৎসব উদযাপনে আজান বন্ধ করে দিল ইসরায়েল

ইসলাম

প্যালেস্টাইনের দখলকৃত পশ্চিম তীরের ঐতিহাসিক ইব্রাহিমি মসজিদের আজান বন্ধ করে দিয়েছে দখলদার ইসরায়েলি সরকার। ইহুদি ধর্মানুসারীদের পুরিম উৎসব ব্যাঘাত দূর করতে এ সিদ্ধান্ত নিয়েছে তারা। জানা গেছে বৃহস্পতিবার (২৫ ফেব্রুয়ারি) থেকে ঐতিহ্যবাহী পুরিম উৎসব উদযাপন শুরু করছে ইসরায়েলি ইহুদিরা। সেদিন সন্ধ্যা থেকেই হেব্রন শহরের ইব্রাহিমি মসজিদে আজান দেয়া নিষিদ্ধ করে দেওয়া হয়েছে।

এ প্রসঙ্গে মসজিদটির পরিচালক শেখ হেফজি আবু স্নেইনা মধ্যপ্রাচ্য ভিত্তিক সংবাদমাধ্যম দ্য মিডল ইস্ট মনিটরকে বলেছেন, শনিবার রাত পর্যন্ত আজান দেয়ায় এই নিষেধাজ্ঞা চলমান থাকবে। ইসরায়েলিদের এই আচরণ ধর্ম-পালন সংক্রান্ত আন্তর্জাতিক আইনের পরিপন্থী।

ইহুদি ধর্মানুসারীদের পুরিম উৎসব উদযাপনে যেন কোনও সমস্যা না হয়, সেজন্য দখল করা পশ্চিম তীরের ঐতিহাসিক ইব্রাহিমি মসজিদে আজান বন্ধ করে দিয়েছে ইসরায়েলি সরকার। এটিকে ‘ধর্মীয় যুদ্ধের আহ্বান’ উল্লেখ করে তীব্র প্রতিবাদ জানিয়েছে ফিলিস্তিন।

জানা যায়, গত বৃহস্পতিবার থেকে ঐতিহ্যবাহী পুরিম উৎসব উদযাপন করছে ইসরায়েলি ইহুদিরা। সেদিন সন্ধ্যা থেকেই হেব্রন শহরের ইব্রাহিমি মসজিদে আজান দেওয়া নিষিদ্ধ করেছে তারা। মসজিদটির পরিচালক শেখ হেফজি আবু স্নেইনা জানিয়েছেন, শনিবার রাত পর্যন্ত আজান দেওয়ায় এই নিষেধাজ্ঞা থাকবে। তার মতে, ইসরায়েলিদের এই আচরণ ধর্ম-পালন সংক্রান্ত আন্তর্জাতিক আইনের পরিপন্থী।

ফিলিস্তিনের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় দখলদার ইসরায়েলের এই আচরণের কঠোর সমালোচনা করেছে। তাদের দাবি, এর মাধ্যমে ধর্মযুদ্ধ শুরুর উসকানি দিচ্ছে ইসরায়েল। পশ্চিম তীরের পরিচয়পত্রধারীদের আল-আকসা মসজিদে নামাজ পড়ায় নিষেধাজ্ঞা এবং ইব্রাহিমি মসজিদের সংস্কার কাজে বাধা দেওয়ারও তীব্র নিন্দা জানিয়েছে ফিলিস্তিন।

Tagged