http://igeneration.com.bd/wp-content/uploads/2021/04/মসজিদে-যেতে-গ্রামবাসীর-স্বেচ্ছাশ্রমে-সাঁকো-নির্মাণ.jpg

মসজিদে যেতে গ্রামবাসীর স্বেচ্ছাশ্রমে সাঁকো নির্মাণ

ইসলাম

কোনো জনপ্রতিনিধির সাহায্য না পেয়ে অর্ধশত বছরের দুর্ভোগ লাঘবে স্বেচ্ছাশ্রমে মাটি কেটে, বাঁশ এনে সাঁকো তৈরি করে মসজিদে যেতে গ্রামবাসীর রাস্তা তৈরি করেছে। জানা যায়, নেত্রকোণার কলমাকান্দার কৈলাটি ইউনিয়নের মাছিম কাকৈড়া গ্রামের মসজিদে যেতে কাদা, মাটি ও নোংরা পানি মাড়াতে হতো ওই এলাকার মানুষের। ওই মসজিদে অন্তত ৫০টি পরিবার নামাজ আদায় করে।

এ দুর্ভোগ থেকে বাঁচতে স্থানীয়রা জনপ্রতিনিধিদের বলে কোনো সুরাহা না পেয়ে স্বেচ্ছাশ্রমে মাটি কেটে, বাঁশ এনে সাঁকো তৈরিতে অংশ নেয়। আব্দুল সলিম মণ্ডল, মমতাজ আকন্দ বলেন, ১৫ দিন ধরে যার যখন সময় হচ্ছে তখন তারা সাঁকো বানানোর কাজ করছেন। সাঁকো নির্মাণ শেষ হতে আরও কয়েকদিন লাগতে পারে। আর বৃষ্টির কারণে মাটির সড়কটি তৈরি করতেও সমস্যা হচ্ছে। তারা আরও বলেন, দিনের পর দিন সড়কে বসে পথচারী বা পরিবহনের যাত্রীদের কাছ থেকে সাহায্য নিয়ে মসজিদটির কিছু অংশ পাকা করা হয়েছে। এখনো চলমান রয়েছে নির্মাণ কাজ।

মসজিদের ইমাম মাওলানা মো. নুরুদ্দিন বলেন, পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতা ঈমানের অঙ্গ। প্রত্যেকেই আমরা সবসময় পরিষ্কার থাকতে চাই। আর মসজিদে নামাজে যাওয়ার আগে তো পরিচ্ছন্নতা আরও বেশি রক্ষা করা হয়। এখন মসজিদে যেতে গিয়ে যদি কাউকে কাদায় মাখামাখি হতে হয় তবে সেই ব্যক্তির মনের অবস্থাটা কী হয় তা প্রত্যেক মুসল্লিদেরই জানা। এজন্য গ্রামবাসীর চেষ্টায় সাঁকো তৈরি করা হচ্ছে।