http://igeneration.com.bd/wp-content/uploads/2021/04/শ্রেষ্ঠ-স্থাপত্য-পুরস্কার-পেল-ক্যামব্রিজের-ইকো-মসজিদ.jpg

শ্রেষ্ঠ স্থাপত্য পুরস্কার পেল ক্যামব্রিজের ইকো-মসজিদ

ইসলাম

মসজিদ মুসলিম সমাজের একটি গুরুত্বপূর্ণ অংশ। মসজিদ আল্লাহর ঘর। পৃথিবীর সর্বপ্রথম ঘর কাবা শরিফ। এটি পৃথিবীর প্রথম মসজিদ। হজরত আদম (আ.) পৃথিবীতে আগমনের পর প্রথমে ইবাদতের জন্য কাবাঘর নির্মাণ করেন। আল্লাহ তাআলা বলেন, ‘নিশ্চয়ই মানবজাতির জন্য সর্বপ্রথম যে ঘরটি নির্মিত হয়েছিল তা তো মক্কায় অবস্থিত, এটি বরকতময় এবং বিশ্বজগতের দিশারি। শ্রেষ্ঠ স্থাপত্য পুরস্কার পেল ক্যামব্রিজের ইকো-মসজিদ।

বহুকাল আগে থেকেই মুসলিম জাতি মসজিদ সুন্দরভাবে তৈরি করে থাকেন, তারই ধারারাবাহিকতায়, ব্রিটেনের ক্যামব্রিজে অবস্থিত ‘গ্রিন মসজিদ’ স্থাপত্যশৈলী ও আবহের কারণে বেশ আলোচিত। এবার মসজিদটি চমৎকার-উদ্ভাবনী নকশা ও নির্মাণশৈলীর কারণে শ্রেষ্ঠ স্থাপত্যের পুরস্কার লাভ করেছে। ক্যামব্রিজ ইনডিপেনডেন্টে প্রকাশিত প্রতিবেদনে এমনটা জানা গেছে।

যুক্তরাজ্যের স্থাপত্যশিল্প বিষয়ক একটি সম্মানজনক পুরস্কার হলো ‘দ্য এজে আর্কিটেকচার অ্যাওয়ার্ডস’। ক্যামব্রিজের ইউনিভার্সিটি আর্মস ২০ নভেম্বর ২০১৯ এই পুরস্কার নির্ধারিত করে। আর দ্য রয়েল টাউন প্ল্যানিং ইনস্টিটিউটস ইস্ট অব ইংল্যান্ড পুরস্কার ঘোষণা করে।

ঘোষণায় বলা হয়, ‘এটি (গ্রিন মসজিদ) অত্যন্ত উৎসাহব্যঞ্জক পদক্ষেপ, যা সাধারণত উপেক্ষা করা হয়। আশা করা যায়, এটি প্রকৃত সৌন্দর্যের দৃষ্টান্ত স্থাপনে সক্ষম হবে। এর নির্মাণে পরিবেশগত বিষয়ে সর্বোচ্চ সতর্কতা অবলম্বন করা হয়েছে।’ পুরস্কারের যোগ্য স্থাপত্য নির্বাচনে ১০০ স্থপতি ও পরিকল্পনাবিদ অংশ নেন।

ইউরোপের প্রথম পরিবেশবান্ধব মসজিদটি চলতি বছরের মার্চে উদ্বোধন করা হয়। এটি নির্মাণে ২৩ মিলিয়ন পাউন্ড ব্যয় হয়। জাতীয় পুরস্কারপ্রাপ্ত স্থপতি মার্কস বারফিল্ড ২০০৯ সালে গ্রিন মসজিদের ডিজাইন করেন।

২০১২ সালে শহর কর্তৃপক্ষ মসজিদ নির্মাণের অনুমতি দেয়। সেপ্টেম্বর ২০১৬ সালে মসজিদের নির্মাণকাজ শুরু হয়। বিচারক প্যানেলের কনভেনার ডেভিট পটার গ্রিন মসজিদের নকশা ও নাগরিক সুযোগ-সুবিধার প্রশংসা করে বলেন, “এই ভবনটি এই যুগের সাংস্কৃতিক ও নৈসর্গিক ‘ল্যান্ডমার্ক’ হয়ে থাকবে।