যে কারণে ‘যৌন কর্মী’ তকমা দেয়া হয়েছিল অনুরাগ কন্যাকে

বিনোদন

শুধু অন্তর্বাস পরা ছবি পোস্ট করে ট্রোলড হয়েছিলেন পরিচালক অনুরাগ কাশ্যপের কন্যা আলিয়া কাশ্যপ। খোলামেলা ছবি নেটমাধ্যমে দেওয়ায় তাকে ‘যৌন কর্মী’ তকমা দেওয়া হয়। ধর্ষণ এবং প্রাণে মেরে ফেলার হুমকিও দেওয়া হয় এই তারকা সন্তানকে।

ইউটিউবের একটি ভিডিওতে আলিয়া জানান, কী ভাবে তিনি অনলাইন হেনস্থা সামলেছেন? তিনি বলেন, নেটমাধ্যমের নেতিবাচক দিকগুলিকে আমি মেনে নিয়েছি। আমি ভীষণ আবেগপ্রবণ মানুষ। কারও তরফ থেকে সামান্য ঘৃণাই কষ্ট দেয়।

আমি বোকা বোকা জিনিস নিয়ে প্রত্যেক দিন কাঁদি। অন্তর্বাস পরে ছবি পোস্ট করার পরেই, একদল নেটাগরিক নীতিপুলিশি শুরু করেন।

আলিয়াকে বলা হয়, নিজেকে ভারতীয় বলে দাবি করার যোগ্য নন তিনি। এমনকি, তার পরিবারক টেনেও কুকথা বলতে ছাড়েনি অনেকে। আলিয়ার ‘রেট’ কত, এমন প্রশ্ন ছুঁড়ে দেওয়া হয় তার দিকে।

মানসিক ভাবে ভেঙে পড়ার পরে নিজেকে সামলান আলিয়া। অনলাইন ট্রোলিংকে গুরুত্ব দেওয়া বন্ধ করে দিয়েছেন বলে জানান অনুরাগ-কন্যা।

কারণ, নেটমাধ্যমে ইতিবাচক দিকটাকেই প্রাধান্য দিয়ে চান আলিয়া। অনুরাগের প্রথম পক্ষের সন্তান আলিয়া। তার মা আরতি বাজাজও যুক্ত বলিউডের সঙ্গে। তবে মা-বাবার মতো বলিউডে আসার ইচ্ছে নেই তার। গ্ল্যামারের জগৎ থেকে নিজেকে দূরে রাখতে চান এই তারকা সন্তান।