http://igeneration.com.bd/wp-content/uploads/2021/04/ভালো-নেই-শাবনূর-দেশের-জন্য-মন-কাঁদছে-তার.jpg

ভালো নেই শাবনূর, দেশের জন্য মন কাঁদছে তার

বিনোদন

অনেক বছর ধরেই স্থায়ীভাবে অস্ট্রেলিয়ায় থাকছেন ঢাকার সিনেমার জনপ্রিয় চিত্রনায়িকা শাবনূর। তার একমাত্র সন্তান আইজানও জন্ম নিয়েছে সেখানে। অস্ট্রেলিয়ার নাগরিকত্ব নিলেও তিনি বাংলাদেশ টু অস্ট্রেলিয়া নিয়মিত যাতায়াত করতেন। কয়েক বছর ধরে বছরে দু’বার করে বাংলাদেশ আসেন। আত্মীয়স্বজন, বন্ধুবান্ধব চলচ্চিত্রের সহকর্মী সবার সঙ্গে দেখা করেন আবার চলে যান তিনি অস্ট্রেলিয়ায়। ভালো নেই শাবনূর, দেশের জন্য মন কাঁদছে তার।

গেল বছর থেকে বৈশ্বিক মহামারী করোনা পরিস্থিতির জন্য লকডাউন থাকায় দেশে আসতে পারেননি শাবনূর। ঠিক করেছিলেন, এবার ঈদে দেশে থাকবেন। কিন্তু দেশে করোনার সংক্রমণ বেড়ে যাওয়ায় আসতে ভয় পাচ্ছেন তিনি। এজন্য তার মন খারাপ।

গণমাধ্যমকে এমনটাই জানিয়েছেন শাবনূর।

অস্ট্রেলিয়া থেকে তিনি বলেন, করোনার মধ্যে এমনিতেই অস্ট্রেলিয়া থেকে বাইরে যেতে হলে অনেক ফরমালিটি মেইনটেইন করতে হয়। বাংলাদেশে যেহেতু করোনার সংক্রমণ অনেক বেড়েছে, তাই এই মুহূর্তে বাংলাদেশে যাওয়ার পরিকল্পনা বাদ দিতে হয়েছে। সবকিছু স্বাভাবিক হোক, তারপরই যাব। সবারই সুরক্ষা জরুরি।

শাবনূর জানান, বাঙালি খাবার সবচেয়ে বেশি মিস করেন তিনি। নিজের গ্রামও অনেক মিস করেন। দেশে থাকতে অবসর পেলেই গ্রামে চলে যেতেন তিনি। বাড়ি থেকে মুরগি, ডিম আর কলা নিয়ে আসতেন। বোরকা পরে ঢাকার তিন শ’ফিট এলাকায়ও যেতেন। সেখান থেকে ভালো মাছ, মুরগি আর তাজা শাক-সবজি ও ফলমূল নিয়ে আসতেন। করোনার এই সময়ে যাদের ঢাকায় খুব বেশি কাজ নেই তাদের গ্রামে যাওয়ার পরামর্শ দিয়েছেন শাবনূর।

তিনি বলেন, গ্রামে যাদের জমি আছে, তারা সেখানে চলে যান। নিজেদের পুকুর থাকলে মাছ চাষ করেন, হাঁস-মুরগিও পালন করতে পারেন। জমিতে নানান ধরনের ফলমূল ও শাক-সবজির চাষাবাদও করতে পারেন। এতে স্বাস্থ্য যেমন ভালো থাকবে, তেমনি মানসিকভাবেও ভালো থাকবেন। অকারণ টেনশন দূর হবে।