বাপ ছেলে মিলে ধর্ষণ, ধর্ষণের পর পুড়িয়ে হত্যা!

সারা বাংলা

আবারও নৃশংস গণধর্ষণ। শুধু ধর্ষণ করেই ক্ষান্ত হননি আগুন লাগিয়ে দিয়েছেন ওই নারীর শরীরে। ঘটনা ভারতের উত্তরপ্রদেশের সীতাপুরের মিশরিখ অঞ্চলে। রিকশা চালক বাবা তার ছেলের বিরুদ্ধে এক নারীকে ধর্ষণ করে তার গায়ে আগুন লাগিয়ে দেয়ার অভিযোগ উঠেছে।

নৃশংস এই গণধর্ষণের ঘটনা ঘটেছে ভারতের উত্তরপ্রদেশ রাজ্যের সীতাপুরের মিশরিখ এলাকায়। ঘটনার পর ওই দুই অভিযুক্তকে আটক করেছে পুলিশ। পুলিশ অভিযুক্তদের আটক করেছে। দ্রুত জেলা হাসপাতালে ভরতি করা হয়েছে নির্যাতিতাকে। তাঁর শরীরের ৩০ শতাংশ পুড়ে গিয়েছে। ঘটনাটি ঘটেছে।

পুলিশ অভিযুক্তদের আটক করেছে। দ্রুত জেলা হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে নির্যাতিতাকে। তার শরীরের ৩০ শতাংশ পুড়ে গিয়েছে। ঘটনাটি ঘটেছে

সীতাপুরের পুলিশ সুপারিটেন্ডেন্ট আরপি সিং বলেছেন, জরুরি নাম্বার ১১২ ফোন করে তাদের কাছে খবর দেয়া হয়। এরপর দ্রুত ঘটনাস্থলে পৌঁছে ওই নারীকে উদ্ধার করে পুলিশ। তিনি বলেন, ৩০ বছর বয়সী ওই নারী ৫৫ বছরের ওই ব্যক্তির রিকশায় উঠেছিলেন। এরপরই তার উপরে চড়াও হয় অভিযুক্ত। তিনি এবং তার ছেলে মিলে ধর্ষণ করে নারীকে। পরে তার শরীরে আগুন লাগিয়ে দেয়। পুলিশ দুই অভিযুক্তকেই আটক করেছে। তাদের জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে।

আরপি সিং আরও বলেন, নির্যাতিতার মেডিকেল পরীক্ষা করা হবে। ওই নারীর শারীরিক অবস্থা এখন স্থিতিশীল। শরীরের ৩০ শতাংশ পুড়ে গেলেও আপাতত ওই নারী বিপদমুক্ত বলে জানিয়েছেন তদন্তকারী পুলিশ কর্মকর্তা।

Tagged