http://igeneration.com.bd/wp-content/uploads/2021/02/সন্তানকে-বাঁচাতে-মায়ের-আগুনে-ঝাঁপ-সন্তানের-সঙ্গেই-পুড়লেন-মা.jpg

সন্তানকে বাঁচাতে মায়ের আগুনে ঝাঁপ, সন্তানের সঙ্গেই পুড়লেন মা

সারা বাংলা

মঙ্গলবার রাতে হঠাৎ সাড়ে ১১টায় তার ঘুম ভাঙে। দেখেন পুরো ঘরে আগুন জ্বলছে। ধোঁয়ায় বন্ধ হয়ে আসছে শ্বাস। ঘুমিয়ে থাকা সন্তানদের বাঁচাতে ছোটাছুটি শুরু করেন সালেহা। দুই সন্তানকে বের করেও আনেন। কিন্তু ছোট মেয়েটি আটকা পড়ে। সন্তানকে বাঁচাতে মায়ের আগুনে ঝাঁপ দিয়ে ঘরে ঢোকেন । তবে এবার আর বের হতে পারেননি। ছোট মেয়ের সঙ্গেই পুড়েছেন আগুনে।

হৃদয়বিদারক ঘটনাটি ঘটেছে কুমিল্লার দাউদকান্দি উপজেলার ভেলানগর গ্রামে।

মৃত সালেহা বেগম একই গ্রামের কুয়েত প্রবাসী মোহাম্মদ আলীর স্ত্রী। তার ছোট মেয়ের নাম ফারজানা আক্তার। সে ভেলানগর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে চতুর্থ শ্রেণিতে পড়তো।

সালেহা বেগমের বড় মেয়ে মাহমুদা আক্তার বিবাহিত। তিনি স্বামীর বাড়িতে থাকেন। দ্বিতীয় মেয়ে মাহফুজা আক্তার নবম শ্রেণিতে পড়ে।

ঘটনার সময় ওই টিনের ঘরের একটি কক্ষে ছিলেন সালেহার মা ফজিলাতুন্নেছা। তিনি বলেন, ‘বাপরে আগুনডা যহন লাগছে তহন আমি চোহেমুহে কিছু দেহি নাই। সন্তানকে বাঁচাতে মায়ের সন্তানকে বাঁচাতে মায়েরমাইয়াডা আমার নাতিনডারে আগুন থাইক্কা বাঁচাইত্ত গিয়া আগুনের মইধ্যে লাফ দিল। আমার মাইয়া মইরা গেলরে। নাতিনডাও নাই, মাইয়াডাও নাই। আল্লাহ এইডা কী করল।’

মা-বোনকে হারিয়ে বাকরুদ্ধ হোসাইন ও আরাফাত। একটু পর পরই মাকে দেখার জন্য চিৎকার করে কাঁদছে তারা। ধোঁয়ায় অসুস্থ হয়ে পড়েছে মাহফুজা।

দাউদকান্দি ফায়ার সার্ভিসের একটি ইউনিট ঘটনাস্থলে এলেও স্থানীয়রা আগেই আগুন নিভিয়ে ফেলে।

Tagged