সীমান্ত থেকে পুলিশ সদস্যকে ধরে নিয়ে গেল বিএসএফ!

সারা বাংলা

পঞ্চগড় সদর উপজেলার মোমিনপাড়া সীমান্ত থেকে ওমর ফারুক (২৪) নামে পঞ্চগড় পুলিশে কর্মরত এক সদস্যকে ধরে নিয়ে গেছে বিএসএফ। ওই পুলিশ কনস্টেবল পঞ্চগড় আদালতে বিচারকদের নিরাপত্তায় নিয়োজিত ছিলেন। তার বাড়ি দিনাজপুর জেলায়। ওই পুলিশ সদস্যকে ধরে নিয়ে যাওয়ার বিষয়টি প্রাথমিকভাবে পুলিশ ও বিজিবি নিশ্চিত করেছে।

গতকাল রোববার রাত সাড়ে ৮টার দিকে সদর উপজেলার হাড়িভাসা ইউনিয়নের ঘাগড়া সীমান্তের মমিনপাড়া এলাকার ৭৫৩ নম্বর মেইন পিলারের ৮ নম্বর সাব পিলারের কাছে এ ঘটনা ঘটে।

স্থানীয়রা জানায়, রোববার রাত সাড়ে ৮টায় পুলিশ কনস্টেবল ওমর ফারুকসহ তিনজন পঞ্চগড় সদর উপজেলার মোমিনপাড়া সীমান্ত এলাকায় যান। এ সময় কয়েকজন ভারতীয় নাগরিকের সঙ্গে তাদের তর্ক হয়। একপর্যায়ে তারা ওমর ফারুককে আটক করে মারধর করে। অপর দুজন পালিয়ে যান। পরে ভারতীয় চানাকিয়া বিএসএফ ক্যাম্পের সদস্যরা এসে ফারুককে আটক করে নিয়ে যায়।

সূত্রটি জানায়, পতাকা বৈঠকে বিজিবি’র নেতৃত্ব দেন ৫৬ ব্যাটালিয়নের অধিনায়ক লেফটেন্যান্ট কর্নেল আব্দুল্লাহ আল মামুন এবং বিএসএফের পক্ষে নেতৃত্বে ছিলেন ২১ বিএন কমান্ড্যান্ট জিএস টমার। এ বৈঠক শেষে সন্ধ্যা ৬টা ৪০ মিনিটে বিজিবির হাতে পুলিশ সদস্য ওমর ফারুককে হস্তান্তর করে বিএসএফ।

এরপর বিজিবি তাকে ঘাগড়া বিওপি ক্যাম্পে নিয়ে আসে। সেখানে প্রয়োজনীয় আইনানুগ ব্যবস্থা শেষে পুলিশের কাছে সোপর্দ করা হয়। সূত্রটি আরও জানায়, পঞ্চগড়ের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার সদর সার্কেল সুদর্শন কুমার রায় ও পঞ্চগড় সদর থানার ওসি (তদন্ত) জামাল হোসেন পতাকা বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন।

স্থানীয়দের অভিযোগ, রোববার (১৪ ফেব্রুয়ারি) আমরা ওমর ফারুক নামের ওই পুলিশ সদস্যকে এই এলাকায় প্রথম দেখেছি। মোশারফ নামের আরেক পুলিশ সদস্য প্রায়ই এ সীমান্তে আসেন। তিনি তাকে এই এলাকায় নিয়ে এসেছেন।

Tagged