সরকারকে মেজর হাফিজের হুঁশিয়ারি

সারা বাংলা

বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান মেজর (অব.) হাফিজ উদ্দিন বীরবিক্রম সরকারকে হুঁশিয়ার করে বলেন, ‘রাজাকারের মতো’ জামুকা (জাতীয় মুক্তিযোদ্ধা কাউন্সিল) একটা ঘৃণিত শব্দে পরিণত হতে যাচ্ছে।  তিনি বলেন, জিয়াউর রহমানের খেতাব কেড়ে নেয়ার ঘৃণ্য উদ্যোগ নিয়ে নিজেদেরকে নব্য রাজাকার বানাবেন না।

আগামী প্রজন্ম আপনাদেরকে এ কাজের জন্য নব্য রাজাকার হিসেবে চিহিৃত করবে। রোববার (১৪ ফেব্রুয়ারি) জাতীয় প্রেসক্লাবে জাতীয়তাবাদী মুক্তিযোদ্ধা দল ও মুক্তিযুদ্ধের প্রজন্মের এক বিক্ষোভ সমাবেশে মেজর (অব.) হাফিজ এসব কথা বলেন।

হাফিজ উদ্দিন আহমেদ বীরবিক্রম বলেন, ‘জামুকার এগুলো কাজ না, জামুকা হলো কে ভাতা পাবেন কে পাবেন না, কে মুক্তিযোদ্ধা, কে মুক্তিযোদ্ধা হবেন না। বীর উত্তম, স্বাধীনতার ঘোষক, জেড ফোর্সের অধিনায়ক, সেক্টর কমান্ডার, সেনাবাহিনীর প্রধান, জেনারেল, প্রেসিডেন্ট … তাঁদের ব্যাপারে এখতিয়ার আছে? হু ইজ জামুকা। কে এদের চেনে। কোথায় জিয়াউর রহমান, কোথায় এগুলো।’

প্রধানমন্ত্রীকে অনুরোধ করে হাফিজ উদ্দিন আহমেদ বলেন, ‘এই খেতাব নিল কি গেল, কিছু আসে যায় না। তিনি (জিয়াউর রহমান) এখন মৃত। খেতাব নিলেও জিয়াউর রহমান জিয়াউর রহমান থাকবেন। লক্ষ-কোটি মানুষের কাছে, অনাগত ভবিষ্যতের কাছে তিনি এই দেশের একজন বীর মুক্তিযোদ্ধা রূপেই ইতিহাসে চিহ্নিত থাকবেন।’

মেজর (অব.) হাফিজ বলেন, ১৯৭২ সাল থেকে মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাসকে বিকৃত করার চেষ্টা করছে সরকার। দলীয় লোকদের মুক্তিযুদ্ধের লেবাস পরানোর চেষ্টা করছে। সাবেক রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমান ‘বীরউত্তম’-এর খেতাব প্রত্যাহারের হীন ষড়যন্ত্রের প্রতিবাদে এই সমাবেশ আয়োজন করা হয়।

Tagged