ধর্মীয় পরিচয় গোপন রেখে বিয়ে করে ৫ বছর সংসার

সারা বাংলা

সাতক্ষীরায় নিজ ধর্ম পরিচয় গোপন করে বিয়ে, ৫ বছর সংসার, এরপর স্ত্রীর গর্ভের তিনটি সন্তান নষ্ট। এসব গুরুতর অভিযোগে এক প্রতারকের বিরুদ্ধে থানায় মামলা করেও কোনো প্রতিকার পাচ্ছেননা অসহায় নাজনীন আক্তার প্রিয়া (২৩)। বরং উল্টো প্রতারক শিমুল বিশ্বাসের হুমকি-ধামকিতে সে এখন চরম নিরাপত্তাহীনতায় ভূগছেন।

লিখিত অভিযোগে তার স্ত্রী বলেন, ‘আমি ভালোবাসার আশ্বাসে প্রতারিত হওয়া এক অসহায় নারী। গত ২০১৬ সালের দিকে যশোর জেলার বাঘারপাড়া উপজেলার নলডাঙ্গা গ্রামের পরিতোষ বিশ্বাসের ছেলে শিমুল বিশ্বাস সাতক্ষীরায় আরএফএল কোম্পানিতে চাকরি করত।

সে সময় তার সাথে পরিচয় হয় আমার। শিমুল নিজেকে মুসলিম পরিবারের পরিচয় দিয়ে তার সাথে আমার প্রেমের সম্পর্ক তৈরি হয়।

মামলার অভিযোগে আরও বলা হয়, ২০১৪ সালে ঢাকা থেকে ট্রেনযোগে রাজশাহী ফেরার সময় হাফিজুর রহমানের দশম শ্রেণি পড়ুয়া মেয়ে হামিদা খাতুন মৌমিতার সঙ্গে পরিচয় হয়। অর্জুন মৌমিতাকে নিজের নাম অভি চৌধুরী বলে জানায়।

ওই সময় মেডিকেল কলেজে ভর্তি পরীক্ষা দিতে রাজশাহী যাচ্ছিলেন অর্জুন। সেই পরিচয় সূত্রে পরস্পরের মধ্যে যোগাযোগ ঘনিষ্ঠ হয়। পরিচয় থেকে প্রেমে জড়ান তারা। অর্জুন মেডিকেল কলেজে পরীক্ষার পর খুলনার একটি মেডিকেল কলেজে ভর্তি হন।