http://igeneration.com.bd/wp-content/uploads/2021/05/He-broke-the-box-through-the-pipe-and-stole-Tk-28-lakh.jpg

পাইপ বেয়ে সিন্দুক ভেঙে ২৭ লাখ টাকা চুরি

সারা বাংলা

পাইপ বেয়ে বহুতল ভবনের ওপরে ওঠা, তারপর গ্রিল কেটে ভেতরে ঢুকে সিন্দুক ভেঙে টাকা নিয়ে কেটে পড়া। মাত্র কয়েক মিনিটে শেষ করে পুরো কাজ। ২৭ লাখ টাকাসহ একজনকে গ্রেপ্তারের পর বের হয়ে আসছে চুরির রহস্য। গ্রিল কেটে ব্যাংকে প্রবেশের পর টাকা না পেয়ে, অপর একটি ব্যবসাপ্রতিষ্ঠান থেকে এই টাকা চুরি করে সে। পাইপ বেয়ে সিন্দুক ভেঙে ২৭ লাখ টাকা চুরি।

সিসিটিভি ফুটেজে দেখা যাচ্ছে, নগরীর জুবিলী রোডের একটি চারতলা ভবনের ভেতরে ঢুকে চুরি করছে এক লোক। কিছুক্ষণ পর টাকাভর্তি থলে নিয়ে বের হয়ে এসে সিএনজি অটোরিকশায় পালাচ্ছে সে। তবে ধরা পড়ার পর জানা গেল তার নাম মুনির। আবার পুলিশকে দেখিয়ে দিল কীভাবে এই দুর্ধর্ষ চুরি করেছিল সে। মূলত ১৮ মে মধ্যরাতে প্রথমেই বহুতল এই ভবনের গ্রিল কেটে তৃতীয়তলার ব্যাংকে ঢোকে মুনির। কিন্তু সেখানে টাকা না পেয়ে আবারো গ্রিল কেটে ঢুকে যায় চতুর্থতলার একটি প্রতিষ্ঠানে। আর সেখানে পেয়ে যায় ২৭ লাখ টাকার বেশি।

জুবিলী রোড মেসার্স বাংলাদেশ সাপ্লায়ার্স মালিক আবুওয়ালা কায়জার বলেন, আমাদের সিন্দুকের তালাটা কীভাবে ভাঙল সেটা আমরা এখনো বুঝতে পারছি না। ওইখানে ব্যবসায়িক টাকা ছিল।

ব্যাংক কর্তৃপক্ষ অভিযোগ না করলেও বাংলাদেশ সাপ্লায়ার্সের মালিক মামলা করলে চোরের সন্ধানে অভিযানে নামে পুলিশ। শুক্রবার রাতভর অভিযান চালিয়ে আটক করা হয় মুনির ও তার সহযোগী সিএনজিচালক মাহফুজ ও স্ত্রী খুকুমনিকে। উদ্ধার করা হয় চুরির ২৭ লাখ টাকা।

সিএমপি উপকমিশনার বিজয় বসাক বলেন, তার নিজস্ব একটি সিএনজি রয়েছে। সেটার মাধ্যমে চুরির কাজ সম্পন্ন করেন। এ ছাড়াও যেখানে নাইটগার্ড ও বিদ্যুৎহীন বিল্ডিংগুলোকে চিহ্নিত করা হয়। পুলিশ জানায়, গত ৭ বছর ধরে নগরীতে চুরি করছিল মুনির। একাধিকবার তাকে গ্রেপ্তারও করা হয়েছিল। কিন্তু প্রতিবারই জামিনে বেরিয়ে ফের চুরি করে সে।

কোতোয়ালি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ নেজাম উদ্দিন বলেন, এরা টার্গেট করে বিভিন্ন বিল্ডিংয়ে চুরি করে থাকে। পাইপ দিয়ে যে কোনো বিল্ডিংয়ের যে কোনো তলায় উঠতে পারে এবং মিনিটের মধ্যে জানালার মধ্যে গ্রিল ও কাচ ভেঙে ফেলেন। এ ঘটনায় প্রথমে বাংলাদেশ সাপ্লায়ার্সের পক্ষে একটি, এবং পরে ওই ব্যাংকের পক্ষ থেকে আরেকটি মামলাটি করা হয়েছে।

Tagged