শ্রমিকের হাটে বিক্রি হচ্ছে শিশুরাও

সারা বাংলা

নোয়াখালীর উপকূলীয় এলাকা সুবর্ণচরের হারিছ চৌধুরীর বাজার ওরফে আটকপালিয়া বাজারে ইরি-বোরো ধান কাটার মৌসুমে প্রতি শুক্র ও সোমবার বসে শ্রমিক বেচাকেনার হাট।

এ শ্রমের বাজারে বড়দের সঙ্গে এখন শিশু শ্রমিকের বেচাকেনাও চলছে হরহামেশা। করোনাকালে অভাব-অনটনের সংসারে স্কুলের বই আর খেলার সামগ্রী রেখে এখন শিশুরাও বাধ্য হচ্ছে কাস্তে-কোদাল হাতে নিতে।

সোমবার (১৭ মে) আটকপালিয়া বাজারে শ্রমিক বিক্রির হাটে গিয়ে দেখা যায়, বড়দের সঙ্গে অসংখ্য শিশুও নিজের শ্রম বিক্রি করতে এসেছেন। ঘণ্টার পর ঘণ্টা দাঁড়িয়ে আছেন মহাজনদের কাছে বিক্রি হওয়ার অপেক্ষায়।

এদের অনেকের পরনে রয়েছে প্রাইমারি স্কুলের পোশাক। তাদের হাতে রয়েছে রাতে ঘুমানোর জন্য কাঁথা, ধানকাটার কাঁস্তে ও কাপড়ের থলে।

বিক্রি হতে আসা দরবেশ বাজারের শাহজাহানের ছেলে রাফি (১২) জানায়, বাড়িতে তার মা একা। সংসার চালাতে টাকার প্রয়োজন, অভাবে পেটের দায়ে সে কাজে এসেছে।

Tagged