মেয়েদের জন্য সেরা ব্যবসার আইডিয়া !

বিজনেস বিজনেস আইডিয়া

মেয়েরা নাকি ব্যবসা করতে পারে না ?  ব্যবসা করতে দরকার অনেক টাকা যা মেয়েদের নেই ?  বড় কোন মূলধন না থাকলে নাকি ব্যবসা করা যায় না ?

আসলেই কি তাই ?  মেয়েদের ধৈর্য, সৃজনশীলতা, উদ্ভাবনী চিন্তা দিয়ে সল্প মূলধন দিয়ে ব্যবসা কি শুরু করা সম্ভব না?

আজকে তাই সল্প মুলধন দিয়ে নিজের চেষ্টায়, ধৈর্য, অধ্যাবসায় এবং দক্ষতা দিয়ে কিভবে কোন ধরনের ব্যবসা মেয়েরা শুরু করতে পারে কিছু ব্যবসার আইডিয়া নিচে দেওয়া হলঃ

 

অনলাইনে শাড়ি বিক্রি

 

বর্তমান যুগ অনলাইনের যুগ । অনেক আগে বাড়ী বাড়ি কি শাড়ী বিক্রি করার প্রচলন ছিল। কিছু তথ্য প্রযুক্তি কাজে লাগিইয়ে এখন কাজের ধরন পরিবর্তন হয়েছে। অনলাইনে বা ফেইসবুকে শাড়ির রিভিউ করে শাড়ির বিক্রি করা যায়। ঢাকার বিভিন্ন স্থান থেকে শাড়ি সংগ্রহ করে তা ফেইসবুকে লাইভে বা রিভিউ ভিডিও বানিয়ে বিক্রি করা যায়।

ক্রেতার রুচি মত শাড়ি এবং পন্যর মান ঠিক থাকলে এইটা খুবই লাভজনক ব্যবসা। সহজের অল্প মূলধনে এই ব্যবসা শুরু করতে পারেন।

 

গয়না বানানোর ব্যবসা

 

বাংলার মেয়েরা অনেক আগে থেকেই হস্তশিল্পে অনেক পারর্দশী। কমবেশি অনেক মেয়ে হাতের কাজ ও শিল্পে দক্ষ। তাই এটি অল্প পুঁজিতে অন্যতম লাভজনক ব্যবসা। বিভিন্ন উপাদান সংগ্রহ করে শুরু করতে পারেন হাতে কাজ, বিভিন্ন ধরনের বাহারী ধরনের আধুনিক ডিজানের নকশা ।

এই সকল গহনা বিক্রি  করতে পারেন অনলাইনে, পরিচিতদের কাছে, বিভিন্ন মেলা বা প্রদর্শনীতে। দাম এবং আকর্শনীয় ডিজাইন রাখলে দ্রুত বিক্রি হবে ।

কাস্টমাইজড গিফট বিক্রি

 

নিজের সৃজনশীলতা উদ্ভাবনী চিন্তা কাজে লাগিয়ে এই নতুন ধরনের উপহার সামগ্রী তৈরী করা যায়। ক্রেতার চাহিদা এবং পছন্দ মত আনুন তাতে ব্যক্তিগত ছোয়া।

টি-শার্ট ডিজাইন , ফটোফ্রম, কফি মগের ডিজাইন, এক রং এর শাড়ির উপর ডিজাইন এর কথা ভাবতে পারেন। ক্রেতার নিজের মত সাজিয়ে নেয়ার ইচ্ছা রাখতে  হবে । সল্প মূলধনে এই ব্যবসা লাভজনক। ছোট দোকান নিতে পারেন অথবা অনলাইনে ব্যবসা শুরু করতে পারেন।

পোশাক তৈরি ও দর্জির কাজ

 

দর্জির ব্যবসা অনেক পুরাতন ব্যবসা । নতুন নতুন কাট এবং ডিজাইনে নতুনত্ব আনতে পারলে ব্যবসা লাভজনক হতে বেশী দিন লাগবে না। প্রচলিত ডিজাইনের পাশাপাশি নতুন ডিজাইন করুন  এবং দ্রুত ডেলিভারির বিনিময়ে মূল্যে বেশী নিন। এতে করে আপনার চাহিদা অনেক বৃদ্ধি পাবে।অল্প টাকাতে আপনি বাড়ীতে বসেই এই কাজ করতে পারবেন ।

 

বুটিক ও অনলাইনে পোশাক বিক্রি 

 

অনেক ক্রেতা আছে যারা নতুন ডিজানের পোশাক  কিনতে আগ্রহী। নতুন নতুন ডিজাইন এবং পোশাকে প্রচলিত ডিজানের বাহিরে গিয়ে পোশাক পরিধানে আগ্রহী। তাই ক্রেতাদের চাহিদা পূরন করতে অনেক বুটিক হাউস গড়ে উঠেছে। ক্রেতার পছন্দ বুজে নতুন ডিজানের পোষাক তৈরি করতে পারলে এই ব্যবসার প্রসার ভাল হবে। অনলাইনেও এই ব্যবসার প্রসার করা যেতে পারে।