লাভজনক কিছু পাইকারি ব্যবসার আইডিয়া ।

বিজনেস বিজনেস আইডিয়া

কাপড়ের পাইকারি ব্যবসা

কাপড়ের বাজারের জন্য ঢাকার ইসলামপুর পাইকারী কাপড় বাজার বিখ্যাত। ইসলামপুর গেলেই বুঝতে পারবেন কোথা তারা কাপড় কিনে। পাইকারদের কাছে কাপড় কয়েকটি ধাপে আসে। তারা পাইকারি দরে কাপড় বিক্রি করে থাকে। আগেই ঠিক করে নিতে হবে কোন ধরণের কাপড় এর ব্যবসা আপনি করতে চান।  গজ কাপড়, থ্রি পিস, শাড়ি, লুঙ্গি ইত্যাদি কাপড়ের ব্যবসা করতে পারেন। যেই কাপড় দিয়ে আপনি ব্যবসা করবেন।

প্রথমে জানতে হবে, কাপড়ের উৎস কোথায়। যেমন আপনি নারায়ণগঞ্জ যেতে যেতে পারেন জামদানির জন্য । ইসলামপুর বা পাইকারি মার্কেটে ব্যবসা করলে আরও সহজ হয়ে যাবে এই ব্যবসা ।

টিশার্টের পাইকারি ব্যবসা

আপনি চাইলে টি-শার্টের পাইকারি ব্যবসা স্বল্প মূলধনে শুরু করতে পারেন। বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের অনুষ্ঠান, পিকনিক, রাজনৈতিক অনুষ্ঠান ইত্যাদি প্রয়োজনে টি-শার্ট প্রয়োজন হয়। যদি এসব অর্ডার নিয়ে গার্মেন্টস থেকে টি-শার্ট পাইকারিতে বানিয়ে নিন। তাহলে, আপনি অনেক কম খরচে ব্যবসা করতে পারবেন।

চালের পাইকারি ব্যবসা

বাদাম-তলী, বাবুবাজার চালের পাইকারি ব্যবসার জন্য বিখ্যাত। চালের পাইকারি ব্যবসা আড়তদাররা বিভিন্ন জেলায় নিজস্ব প্রতিনিধি প্রেরণ করে থাকে। ট্রাকে করে পণ্য পাইকারের কাছে নিয়ে আসে। তাই, পাইকারকে গাড়িভাড়া, শ্রমিকের মজুরি ,বস্তার খরচ দিতে হবে। চালের পাইকারি ব্যবসা শুরু করার আগে যা করতে হবে :

  • চালের সম্পর্কে জ্ঞান অর্জন করতে হবে।
  • সঠিক জায়গায় আড়ত বা দোকান ঠিক করা। যাতে করে গাড়ি সরাসরি দোকানে আসতে পারে এবং খুচরা ব্যবসায়ীদের নজরে থাকে।

কাঁচামালের পাইকারি ব্যবসা

কাঁচামালের পাইকারি ব্যবসা যারা করে তারা কৃষক থেকে পণ্য আনে না। তাদের আরেকটি অংশ থাকে যারা ট্রাকে কিংবা ভ্যান করে কৃষক কিংবা আড়তদারের কাছে থেকে পণ্য নিয়ে আসে। এরপর পাইকারদের কাছে  বিক্রি করে। কারওয়ান বাজার কিংবা শ্যামবাজারে পাইকারি ব্যবসা করেন  । তাহলে, কাঁচামাল সংগ্রহ নিয়ে দুঃচিন্তা করতে হবে না।

কিন্তু,যদি আপনি অন্য মাধ্যমে পাইকারি ব্যবসা করতে চান। তাহলে, ২টি কাজ করতে পারেন।

  • সরাসরি মাঠপর্যায়ে কৃষকের কাছে থেকে কাঁচামাল সংগ্রহ করতে পারেন।
  • খুচরা ব্যবসায়ীদের কাঁচামাল সরবারহের জন্য চুক্তি করতে পারেন। এর কারনে কাঁচামাল স্টকের খরচ বেঁচে যাবে। কারন খুচরা বিক্রেতাকে কৃষকের কাছে থেকে সরাসরি কাচামাল বিক্রি করছেন, তাই , মুনাফাও বেশি হবে।

 

মুদি পন্যের পাইকারি ব্যবসা

মুদি পন্যের পাইকারি ব্যবসা করার সহজ উপায় পণ্যের ডিলারশীপ নেয়া। তাছাড়া চাইলে  আপনি শুধুমাত্র চাউলের পাইকারি ব্যবসা করতে পারেন। অথবা মশলা, তেল কিংবা অন্যান্য পণ্যেরও ব্যবসা করতে পারেন।